প্রথম আলোর খবর >> র‌্যাবের ভেতরেই আইএসের সৌর্স!

প্রথম আলো “জঙ্গি’ শফিউলকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা হয়েছিল: র‍্যাব” শিরোনামে একটি সংবাদ পরিবেশন করা হয়েছে শুক্রবার দুপুরে। সেখানে র‌্যাবের বরাতে লেখা হয়েছে-

“আজ শুক্রবার সকালে র‍্যাব-১৪ এর কমান্ডিং অফিসার শরিফুল ইসলাম এসব কথা জানান। তাঁর ভাষ্য, চিকিৎসা শেষে গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে শফিউলকে কিশোরগঞ্জের থানায় হস্তান্তর করতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। নান্দাইলের ডাংরি এলাকায় দুটি মোটরসাইকেলে করে কয়েকজন এসে শফিউলকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা চালায়। এরপর র‍্যাবের সঙ্গে তাদের ‘বন্দুকযুদ্ধ’ শুরু হয়। যে মাইক্রোবাসে করে শফিউলকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল, সেটির ওপরও হামলার চেষ্টা চলে।

র‍্যাব বলছে, অন্ধকার থাকায় কারা মোটরসাইকেলে এসেছিল, তা বোঝা যায়নি। ‘বন্দুকযুদ্ধের’ পর আলোর ব্যবস্থা করে দুজনের লাশ পড়ে থাকতে দেখা যায়। এর মধ্যে একজন শফিউল। আরেকজনের পরিচয় মেলেনি।”

এখানে র‌্যাবের দেয়া তথ্য মতে দেখা যাচ্ছে, র‌্যাব একজন আসামি নিয়ে কখন কিভাবে কোথায় যাবে তা জানা ছিল জঙ্গিদের। ফলে তারা ছিনতাইয়ের জন্য হামলা করতে পেরেছে।

এ ধরনের কর্মকাণ্ড হামলার ঘটনার অনেক আগে থেকে র‌্যাবের ওপর গোয়েন্দাগিরি করা ছাড়া সম্ভব নয়। আর এমন গোয়েন্দাগিরি শুধু তখনই সম্ভব যখন র‌্যাবের ভেতর থেকে কেউ জঙ্গিদের তথ্য সরবরাহ করবে।

উপরিউক্ত ঘটনায় এটা স্পষ্ট যে, আইএসের জঙ্গিরা ঠিকঠাক মতো জানতে পেরেছিল যে, কবে কখন কয়টায় জঙ্গি শফিউলকে হাসপাতাল থেকে ছাড়া হবে, এবং কোন পথে কোন গাড়িতে বহন করে র‌্যাব তাকে নিয়ে কোন জায়গায় যাবে। তারপরই তারা হামলা চালাতে সক্ষম হয়েছে। এমন খবরে সাধারণের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়েছে। অনেকে বলছেন, র‌্যাবের ভেতরে ভূত থাকলে জঙ্গি বিরোধী ক্যাম্পেইন কিভাবে সফল হবে?

Leave a Reply

Go Top
%d bloggers like this: