ফারজানা রুপা আর সিদ্দিকী নাজমুলের লন্ডন কেলেঙ্কারি

ডেইলিবিডিটাইমস রিপোর্টঃ ব্রিটেনের পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা করার হুমকি দিয়ে ফেঁসে গেছে ৭১ টিভির সাংবাদিক নামধারী দুর্বৃত্ত ফারজানা রুপা। লন্ডনে তার অপকর্মের বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ দলিল এখন লন্ডন মেট পুলিশের হাতে। ব্যাংক ডাকাত সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে ১৭ এপ্রিল লন্ডন সফরে গিয়ে নানা কেলেঙ্কারির জন্ম দেয় রুপা। স্বামী শাকিলকে ঢাকায় রেখে লন্ডনে গিয়ে প্রতি রাতেই ছাত্রলীগের সাবেক নেতা সিদ্দিকী নাজমুলের সঙ্গে হারিয়ে যেত রুপা। নাজমুল-রুপার প্রতিদিন রাতের মদ-মাস্তিতে মাঝে মাঝে অংশ নিত শেখ হাসিনার ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি আশরাফুল আলম খোকন। সাংবাদিক পরিচয়ের আড়ালে রুপা নাজমুলের সঙ্গে উপভোগ করলেও লন্ডন সফরটি এবার ভালো কাটেনি শেখ হাসিনার। একদিকে শেখ হাসিনার গুম খুন নিয়ে ব্রিটেনের নিউজ চ্যানেল ফোর এর রিপোর্ট অপরদিকে ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে প্রতিদিন যুক্তরাজ্য বিএনপি এবং প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রতিবাদ বিক্ষোভের ফলে সাঙ্গপাঙ্গসহ প্রায় বন্দি জীবন কাটিয়েছেন শেখ হাসিনা। ফলে জনগণের দৃষ্টি ভিন্নখাতে নিতে সাংবাদিক পরিচয়ে একটি ‘পরিস্থিতি’ তৈরী করার জন্য ফারজানা রুপাকে সেন্ট্রাল লন্ডন থেকে পূর্ব লন্ডনে বিশেষ এসাইনমেন্ট দিয়ে পাঠান শেখ হাসিনা এবং শাহরিয়ার আলম। ‘পরিস্থিতি’ তৈরী করতে রুপা পূর্ব লন্ডনে ব্রিটিশ-বাংলাদেশী অধ্যুষিত ইস্ট লন্ডন মসজিদ যার অপর নাম লন্ডন মুসলিম সেন্টার (এলএমসি) কে টার্গেট করে। পরিকল্পনা মতো ১৯ এপ্রিল সেন্ট্রাল লন্ডন থেকে রওয়ানা দিয়ে পূর্ব লন্ডনের এলএমসি রওয়ানা দেয় ফারজানা রুপা। রুপার পাশে লন্ডনে তার বিশেষ সঙ্গী সিদ্দিকী নাজমুল।
পূর্ব লন্ডনের এলএমসি’র উদ্দেশ্যে যাত্রাপথে অলগেট ইষ্টে একটি পাব-এ (মদের দোকান) ঢুকে রুপা, নাজমুল এবং আরো একজন। মদ খেয়ে রুপা প্রায় বেসামাল। বেসামাল অবস্থায় এলএমসি’র পাশে একটি গলিতে মোড়ে দাঁড়ায় ফারজানা রুপা। ড্রাগ এডিক্টদের কাছে এই গলিটি বেশ পরিচিতি। এখানে প্রায়শই এক-দু’জন ড্র্যাগ এডিক্ট নিজেদের মতো করে দাঁড়িয়ে থাকে। একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন,বেসামাল রুপাকে দেখে একজন ড্রাগ এডিক্ট এগিয়ে আসে। নিজেদের লোক মনে করে রুপাকে ড্রাগ অফার করে। এতে ক্ষেপে যায় বেসামাল রুপা। ড্রাগ এডিক্টের সঙ্গে বেসামাল ফারজানা বিতর্কে জড়িয়ে পড়ে। ঠিক এই সময় একটি মোটরসাইকেলে এসে দুই যুবক রুপার ক্যামেরা নিয়ে যায় বলে অভিযোগ করে রুপা। খবর পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশ এসে ওই ড্রাগ এডিক্ট ব্যাক্তিকে গ্রেফতার করে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করার পরই বেরিয়ে আসে রুপার ক্যামেরা চুরি নাটকের রহস্য। এরপর এ ঘটনাকে নিজের কৃতিত্ব জাহির করতে রুপা নানাভাবে রংমাখিয়ে ঢাকায় প্রচার করে। এমনকি লন্ডন থেকে ঢাকায় ৭১ টিভিতে লাইভ দেয়ার সময় তার ক্যামেরা ছিনতাইয়ের ঘটনায় ব্রিটিশ পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা করারও হুমকি দেয়।

একজন ড্রাগ এডিক্টের সঙ্গে বেসামাল রুপা ঝগড়া বাধিয়ে ‘এলএমসি তথা ইস্ট লন্ডন মসজিদ’ কেন্দ্রিক কোনো ‘পরিস্থিতি’ তৈরী করার ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নে ব্যর্থ হয়ে নতুন ‘সমীকরণ’ তৈরির মিশনে নামে। শেখ হাসিনা ২২ এপ্রিল ব্রিটেন ত্যাগ করলেও সিদ্দিকী নাজমুলের সঙ্গে লন্ডনে থেকে যায় বহুগামী ফারজানা রুপা। মদ-মাস্তি-রঙ্গ-সঙ্গের পাশাপাশি শেখ হাসিনাকে খুশি করতে চলতে থাকে নানা ‘সমীকরণ’ তৈরির ষড়যন্ত্র। তবে বাঁধসাধে বেরসিক ব্রিটিশ পুলিশের তৎপরতা। লন্ডনে আওয়ামী লীগের আনোয়ারুজ্জামান -সিদ্দিকী নাজমুল গ্রূপ বিরোধী এক নেতা জানিয়েছেন, কিছু বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ব্রিটেনের পুলিশ রুপাকে খুঁজছে এই তথ্যটি লন্ডনে শেখ হাসিনা পরিবারের একটি সূত্র থেকে রুপার গোচরে আনা হয়। একইসঙ্গে সিদিকী নাজমুলের সঙ্গেও পুলিশ কথা বলতে চায় বলে জানানো হয়। এই খবর জানার কয়েকঘন্টার মধ্যেই টিকেট পরিবর্তন করে গোপনে লন্ডন ত্যাগ করে ফারজানা রুপা এবং সিদ্দিকী নাজমুল। তবে লন্ডন থাকার সময় ‘ফারজানা রুপা’র কার্যক্রমের সিসিটিভি ফুটেজ পুলিশ সংগ্রহ করেছে। পুলিশের একটি সূত্র বলেছে, যেহেতু রুপা ব্রিটেনের পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা করার হুমকি দিয়েছে সেহেতু নিজেদের স্বার্থেই পুলিশ লন্ডনে রুপার কার্যক্রমের সিসিটিভি ফুটেজে উদ্ধার করে রেখেছে। এইসব ফুটেজে রুপার অপকর্মের নানাচিত্রের পাশাপাশি সিদ্দিকী নাজমুলের সঙ্গে রঙ্গলীলার ফুটেজও ধরা পড়েছে।

Leave a Reply

Go Top
%d bloggers like this: