Warning: count(): Parameter must be an array or an object that implements Countable in /customers/4/a/c/dailybdtimes.com/httpd.www/wp-includes/post-template.php on line 284

মামলার সেঞ্চুরী-ডাবল সেঞ্চুরী পার করেছেন বিএনপির অন্তত তিন ডজন নেতা : এবার শেখ হাসিনার নতুন উৎপাত গায়েবি মামলা

ডেইলীবিডিটাইমস রিপোর্ট : গত এক মাসে সারাদেশে ৪ হাজার ১০৮টি গায়েবী মামলা দেয়া হয়েছে বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে। গ্রেফতার করা হয়েছে প্রায় ৪ হাজার ৪৮৩ জন। এসব মামলায় আসামী করা হয়েছে ৩ লাখ ৫৮ হাজার ৭২০জন। এর মধ্যে এজহারভুক্ত জ্ঞাত আসামির সংখ্যা ৮৪ হাজার ৭৮৩ এবং অজ্ঞাত হচ্ছে ২ লাখ ৭৩ হাজার ২৪২ জন।এসব গায়েবী মামলার কোন অস্তিত্ব নেই। পুরোপুরি ভৌতিক মামলা। আসামিদের মধ্যে মৃত ব্যক্তি, ৮৬ বছরের প্যারালাইসড রোগী, এমনকি হজ ও চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে থাকা ব্যক্তিও রয়েছেন।
খালেদা জিয়াসহ দুই শতাধিক কেন্দ্রীয় নেতার বিরুদ্ধেই রয়েছে ৫ হাজারের বেশী মামলা। মামলার সেঞ্চুরী-ডাবল সেঞ্চুরী পার করেছেন অন্তত তিন ডজন নেতা। কয়েক ডজন নেতার বিরুদ্ধে এ সংখ্যা পশ্চাশোর্ধ্ব। প্রায় সব মামলাই দায়ের হয়েছে বিস্ফোরক দ্রব্য, সন্ত্রাসবিরোধী, দ্রুত বিচার ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে।
দলটির নীতিনির্ধারকসহ কেন্দ্রীয় ও মাঝারি সারির নেতাদের সপ্তাহে তিন-চারদিন হাজিরা দিতে হয় আদালতে।কারো কারো দিন শুরু হয় কোর্টের বারান্দায়।
দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার নামে মিথ্যা মামলার পাহাড় গড়েছে ব্যাংক ডাকাত সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেইখ হাসিনা। তাঁর নামে মামলা দেয়া হয়েছে ৩৭ টি।
বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলাসহ ১১২ টির বেশী মামলা দেয়া হয়েছে। দলের প্রানপুরুষ,ই আধুনিক রাজনীতির প্রতিভূ দেশে না থাকলেও স্বৈরাচার হাসিনার হিংস্রতায় মামলা থেকে তাঁর রেহাই মিলছে না। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বিরুদ্ধে দেয়া হয়েভিচের ৮৮টি মামলা। এর মধ্যে প্রায় অর্ধেক মামলার অভিযোগপত্র দেওয়া হয়েছে। বিশেষ ট্রাইব্যুনালে কয়েকটি মামলার বিচারকার্যও শুরু হয়েছে। সব মামলাতেই তিনি জামিনে আছেন। এসব মামলায় সপ্তাহে দুইদিন তাকে আদালতে হাজিরা দিতে হয়।
বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে মামলার মামলার ডাবল সেঞ্চুরী পার করেছেন চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক প্রতি মন্ত্রী আমানউল্লাহ আমান, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, বিএনপির স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরফত আলী সপু,যুবদল সভাপতি সাইফুল আলম নিরব ও সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু।
আমানুল্লাহ আমানের নামে আছে ২১৭ টি মামলা। হাবিবুন্নবী সোহেলের নামে ২২৮ টি মামলা , শরাফত আলী সপুর নামে ২১০টি মামলা। সাইফুল আলম নীরব ২২১টি মামলার আসামী। শেখ হাসিনার আদালতে ২১১ মামলার আসামি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল। তার বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে ৮৮টি মামলার চার্জশিট হয়েছে।
বিএনপি চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাসের বিরুদ্ধে রয়েছে ১১২টি মামলা। গ্রেপ্তার হয়ে আট মাস ধরে তিনি কারাভোগ করছেন। বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানীর বিরুদ্ধে রয়েছে ১২০ মামলা। ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি আজিজুল বারী হেলালের নামে ১৩৪টি, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য এবং ঢাকা মহানগর দক্ষিণের যুগ্ম সম্পাদক শেখ রবিউল আলমের নামে রয়েছে ১১২ টি মামলা। ২০১৮ সালের ১লা সেপ্টেম্বর থেকে ২০শে সেপ্টেম্বর। মাত্র কুড়ি দিন সময়। এ সময়ের মধ্যেই রাজধানীর ৬ থানায় দায়েরকৃত ৩৩ মামলার সবক’টিতে আসামি হয়েছেন শেখ রবিউল। সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুর বিরুদ্ধে ঢাকা ও নাটোরে দায়ের হয়েছে ১২৫ মামলা।
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক হাবিবুর রশীদ হাবিব বর্তমানে বর্তমানে প্রায় ১২০ মামলার আসামি। ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আরেক যুগ্ম সম্পাদক নবী উল্লাহ নবীর বিরুদ্ধে রয়েছে ১১৮টির বেশি মামলা। স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের বিরুদ্ধে ৯৮টি মামলা রয়েছে। দলের সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর নামে ৭৮ টি মামলা দেয়া হয়েছে।
সাবেক এমপি সৈয়দা আশিফা আশরাফি পাপিয়া বর্তমানে দলের কোন পর্যায়ে পদ-পদবিতে না থাকা এ নারী নেত্রী ৬৫ মামলার আসামি।
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক মন্ত্রী ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনের বিরুদ্ধে বর্তমানে ১৪ টি মামলা রয়েছে। গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের বিরুদ্ধে ৪৪ মামলা রয়েছে। তরিকুল ইসলামের নামে ২৫,ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়ার নামে ২৩ এবং সালাহউদ্দিন আহমেদের নামে ৪৭টি মামলা রয়েছে।
বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলুর বিরুদ্ধে রয়েছে শতাধিক মামলা। সাবেক প্রতিমন্ত্রী ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুর নামে ৩৭, ডাক্তার এ জেড এম জাহিদ হোসেন ২৫, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ ৭০টির বেশি মামলার আসামী । আবদুল আউয়াল মিন্টুর নামে ১৮,শামসুজ্জামান দুদু ২২,আবদুল্লাহ আল নোমান ১৩, সেলিমা রহমান ১১, শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন ১৮, মেজর (অব) হাফিজউদ্দিন আহমেদের নামে ৬টি মামলা রয়েছে। চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক ৩১, মিজানুর রহমান মিনু ১৩, ফজলুল হক মিলন ১২ ও নাদিম মোস্তফার নামে ২৭টি মামলা রয়েছে।

Leave a Reply

Go Top
%d bloggers like this: